১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ-ভিডিও ধারণ, মিরপুর থানার এসআই আটক

আপডেট: জানুয়ারি ৩, ২০২০

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বিয়ের প্রলোভন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের অভিযোগে মিরপুর মডেল থানার এক উপ-পরিদর্শকের (এসআই) বিরুদ্ধে মামলা করেছেন এক তরুণী। বৃহস্পতিবার রাতে ভুক্তভোগী ওই তরুণী রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানায় এ মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর ২।

মামলায় ধর্ষণের আলামত পরীক্ষার জন্য ভুক্তভোগীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) পাঠিয়েছে পুলিশ।

অভিযুক্ত আব্দুর রকিব খান বাপ্পি মিরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হিসেবে কর্মরত। তার গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জের তারাইলে।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী ওই তরুণী বলেন, বাপ্পি এসআই হিসেবে যোগ দেয় আড়াই বছর আগে। কিন্তু আমাদের মধ্যকার প্রেমের সম্পর্ক গত পাঁচ বছর ধরে। এর মধ্যে সে একাধিকবার বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করেছে। কিন্তু সম্প্রতি সে বিয়ে না করার জন্য টালবাহানা করছিল।

তিনি বলেন, আজ সকালে সে আগারগাঁও এলাকার একটি বাসায় ডাকে। সেখানে গেলে সে কিছু গোপন ভিডিও দেখায় এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। সেখান থেকে আমি সোজা শেরেবাংলা নগর থানায় আসি। দিনভর তার পরিবার ও পুলিশের পক্ষ থেকে সমঝোতার চেষ্টা করে। আমি সর্বশেষ অনড় থেকে রাতে মামলা দায়ের করেছি।

অন্যদিকে মামলা দায়ের হওয়ার পর অভিযুক্তকে আটক করেছে শেরেবাংলা থানা পুলিশ।

এ ব্যাপারে শেরেবাংলা নগর থানার ওসি জানে আলম মুনশি বলেন, মামলা নথিভুক্ত হওয়ার পর ধর্ষণের আলামত পরীক্ষা ও সংগ্রহের লক্ষ্যে ভুক্তভোগীকে ঢামেক হাসপাতালের ওসিসিতে পাঠিয়েছি। তদন্তের স্বার্থে অভিযুক্ত বাপ্পিকে আটক করা হয়েছে। মামলা নথিভুক্ত হওয়ার পর পরবর্তী আইনি কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Website Design and Developed By Engineer BD Network